মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

খেলাধুলা ও বিনোদন

ক্রীড়াঃ

‘‘ক্রীড়াই শক্তি’’-প্রবচনটি একটি সুশৃঙখল সমাজের জন্য অত্যন্ত যথার্থ। ক্রীড়া যেমন একটি সমাজের বহুমুখী সামর্থের পরিচায়ক একই সাথে তা একটি জনগোষ্ঠীর শৃঙখলা ও সম্প্রীতিরও পরিচায়ক বটে। ক্রীড়া আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ করে। ক্রীড়া আমাদের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় প্রেরণা যোগায়। ক্রীড়া আমাদের মধ্যে ভ্রাতৃত্ব ও সৌহার্দ্য দৃঢ়মূল করে।

 

বান্দরবান পার্বত্য জেলা অনেক বৈশিষ্ট্যেই একটি অনন্য সাধারণ জেলা। প্রাকৃতিক ঐশ্বর্যের ন্যায় এর অধিবাসীদের ক্রীড়ায় কৃতিত্বও বেশ উল্লেখযোগ্য। বান্দরবান বাংলাদেশের একটি অন্যতম বৃহৎ জেলা হলেও এর জনসংখ্যা তুলনামূলক উল্লেখযোগ্য নয়। তথাপি ইতোমধ্যে এ জেলার ক্রীড়াবিদরা বিভিন্ন ক্রীড়া নৈপুণ্য প্রদর্শনে যে সামর্থ দেখিয়েছেন তা অত্যন্ত প্রশংসার দাবি রাখে। শুধুমাত্র জাতীয় পর্যায়ে নয় আন্তর্জাতিক পর্যায়েও বান্দরবানের ক্রীড়াবিদদের বিশেষ সাফল্য রয়েছে। ১১তম এসএ গেমস্ কারাতে প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ জাতীয় দলের স্বর্ণ জয় করেন  জ উ প্রু ও উচাইনু। জাতীয় পর্যায়ে জ উ প্রু কারাতে প্রতিযোগিতায় ১৫ বার পদক অর্জন করেন। ব্যক্তিগত ইভেন্টে তিনি এসএ গেইমসে্ মোট ৫টি স্বর্ণ পদক অর্জন করেন। বান্দরবানের আরেকজন এথলেট মাথুইপ্রু আর্চারিতে এস.এ গেইমসে ব্রোঞ্জ পদক লাভ করেন। বান্দরবানের মোহন খান বাংলাদেশ গেইমসে পরপর তিনবার  দ্রুততম মানব হওয়ার স্বীকৃতি অর্জন করেন। এস এ গেইমসে্ কারাতে প্রতিযোগিতায় লামার মেয়ে ইতি ইসলাম ব্রোঞ্জ পদক লাভ করেন। বান্দরবানের লামা উপজেলায় অবস্থিত কোয়ান্টাম কসমো স্কুল ও কলেজ-এর শিক্ষার্থীরা ৪৩তম জাতীয় স্কুল ও মাদ্রাসা ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ২০১৪-এ হ্যান্ডবল প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। বান্দরবানের মেয়ে তিং তিং ম্যা জাতীয় সাঁতার প্রতিযোগিতায় তিনবার স্বর্ণ পদক অর্জন করেন। জাতীয় নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতায় বান্দরবান মহিলা ক্রীড়া দল তিনবার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। জাতীয় পর্যায়ে জুনিয়র খো খো প্রতিযোগিতায় বান্দরবান জেলা দল অংশগ্রহণ করে তৃতীয় স্থান অর্জন করে। ২০১২-তে রাঙামাটিতে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার গোল্ড কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে বান্দরবান ফুটবল দল রানার্স আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করে। পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক ব্যাডমিন্টন প্রতিযোগিতায় বান্দরবান ব্যাডমিন্টন দল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। আন্তঃ জেলা ভলিবল টুর্নামেন্টে বান্দরবান চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। ঢাকায় মাওলানা ভাসানি হকি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত জাতীয় উপজাতি হকি প্রতিযোগিতায় বান্দরবান হকি দল পরপর তিনবার রানার্স আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করে। বান্দরবানের ছেলে মোঃ জসিম উদ্দিন বাংলাদেশ অনুর্দ্ধ ২৩ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়কত্ব করার মর্যাদা লাভ করেছেন। বান্দরবান থেকে প্রেরিত ক্রিকেট, ফুটবল, হকি, টেবিলটেনিস, নৌকা বাইচ, এথলেটিক্সসহ বিভিন্ন ক্রীড়া ইভেন্টে দলসমূহ উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ট্রফি ও চ্যাম্পিয়নশিপ অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।

 

বান্দরবান পার্বত্য জেলায় বাঙালিসহ ১১টি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি সম্প্রদায়ের লোক বাস করে। এখানে প্রথাগত ক্রীড়ার পাশাপাশি বিভিন্ন উপজাতীয় ক্রীড়াও বিশেষভাবে জনপ্রিয়। বান্দরবানের ঐতিহ্যবাহী রাজার মাঠে পহেলা বৈশাখে প্রতি বছর বলি খেলা অনুষ্ঠিত হয়। বর্ষা মৌসুমে সাংগু নদীতে অনুষ্ঠিত হয় ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ। অত্যন্ত আড়ম্বরপূর্ণ ও সফলভাবে ২০১১ সালে অনুষ্ঠিত হয় জেলা প্রশাসক গোল্ড কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট। সদ্য সমাপ্ত পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় ফুটবল লীগ ২০১৪ অত্যন্ত সফলভাবে অনুষ্ঠিত  হয়েছে। মাসব্যাপী এ লীগে ১০টি দল অংশগ্রহণ করে। গত ২ ডিসেম্বর ২০১৪ তারিখে এ লীগের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। মাননীয় ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জনাব বীরেন সিকদার এ খেলায় উপস্থিত থেকে পুরস্কার বিতরণ করেন। বান্দরবানের প্রতিটি উৎসবেই ক্রীড়া বিশেষ অনুষঙ্গ হয়ে থাকে। এটা যেমন হয়ে থাকে বাংলা নববর্ষে একই ভাবে হয়ে থাকে মার্মাদের নববর্ষ সাংগ্রাইয়ে। এখানে উপজাতীয়দের ঘিলা খেলা বিশেষ উল্লেখযোগ্য। ১৯৯৪ সাল থেকে প্রতিবছর নিয়মিতভাবে বান্দরবানে ঐতিহ্যবাহী ঘিলা খেলা টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। মার্মা নববর্ষ সাংগ্রাই উপলক্ষে ঐতিহ্যবাহী পানি খেলা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে মার্মা তরুণ তরুণীরা পরস্পরের প্রতি মৈত্রী পানি বর্ষণ করে থাকে। তৈলাক্ত বাঁশে আরোহণ এখানকার আর একটি ঐতিহ্যবাহী ক্রীড়া প্রদর্শন।

 

ক্রীড়ায় সাফল্য অর্জনের পিছনে ক্রীড়াবিদদের পৃষ্ঠপোষকতা বিশেষ ভূমিকা রাখে। বান্দরবান জেলা ক্রীড়া সংস্থা এই পৃষ্ঠপোষকতার কাজ অত্যন্ত সফলভাবে পালন করছে। জেলা ক্রীড়া সংস্থা প্রতিবছর ক্রীড়া ক্যালেন্ডার প্রণয়নের মাধ্যমে জেলায় ক্রীড়া উন্নয়ন কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করে থাকে। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বান্দরবানের অর্জনকে সমুন্নত ও আরো উজ্জ্বল করতে জেলা প্রশাসন  ও বান্দরবান পার্বত্য জেলা ক্রীড়া সংস্থা তার নিরলস উদ্যোগ বাস্তবায়নে সদা সচেষ্ট রয়েছে।

                                                                                                                                                      লেখকঃ

জনাব গোলাম মোরশেদ

সহকারী কমিশনার

বান্দরবান পার্বত্য জেলা

 

বিনোদনঃ