মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

রেড ক্রিসেন্ট

Established by the president's order No. 26 of 1973 as an auxiliary to the Government এই আদেশ বলে সোসাইটির বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সারা বাংলাদেশে পরিচালিত। প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট দুর্যোগে বাংলাদেশ সরকারের পাশাপাশি সরকারের সহযোগী সংস্থা হিসেবে কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে।

আন্তর্জাতিক রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট আন্দোলনের মূলনীতি

Red Cross & Red Crescent Movement

 ১৯৬৫ সালে ভিয়েনায় অনুষ্ঠিত রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট-এর ২০ তম আন্তর্জাতিক সম্মেলনে আন্দোলনের নিম্নলিখিত ৭টি মৌলিক নীতি গৃহীত হয়। 

1.  কোন প্রকার ভেদাভেদ ছাড়া যুদ্ধক্ষেত্রে আহতদের সাহয্যের উদ্দেশ্যে সৃষ্ঠ আন্তর্জাতিক রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট আন্দোলন, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে সর্বত্র মানুষের দুঃখ দুর্দশা প্রতিরোধ ও উপশম করার চেষ্টা করে। জীবন ও স্বাস্থ্য রক্ষা এবং মানুষের সম্মান বজায় রাখা এর উদ্দেশ্য। এই আন্দোলন পারস্পরিক সমঝোতা, বন্ধুত্ব, সহযোগিতা এবং সকল জাতির মধ্যে স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠার পথ সুগম করে।

 2. এই আন্দোলন জাতি, গোত্র, ধর্মীয় বিশ্বাস, শ্রেণী বা রাজনৈতিক মতবাদের মধ্যে কোন বৈষম্য করে না। কেবলমাত্র প্রয়োজনের ভিত্তিতে এই আন্দোলন মানুষের কষ্ট লাঘবের চেষ্টা করে এবং সর্বাধিক বিপদাপন্ন ব্যক্তিদেরকে সাহায্যের অগ্রাধিকার দেয়।

 3. সকলের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জনের উদ্দেশ্যে এই আন্দোলন সংঘর্ষকালে কোন পক্ষ অবলম্বন করে না বা কোন সময় রাজনৈতিক, গোত্রগত, ধর্মীয় বা আদর্শগত মতবিরোধে অংশগ্রহণ করে না।

 4. এই আন্দোলন স্বাধীন। মানবসেবামূলক কাজে সরকারের সহায়ক হিসেবে জাতীয় সোসাইটি নিজ নিজ দেশের আইনের অধীনে ন্যস্ত থাকলেও আন্দোলনের নীতিমালা অনুযায়ী কাজ করার জন্য তাদেরকে অবশ্যই নিজস্ব স্বাধীনতা বজায় রাখতে হবে।

5. একটি স্বেচ্ছাসেবামূলক ত্রাণ সংগঠন হিসেবে এই আন্দোলন কোন প্রকার স্বার্থ বা লাভ অর্জনের উদ্দেশ্যে কাজ করে না।

6. কোন দেশে কেবল একটি রেড ক্রস বা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি থাকবে। সকলের জন্য এর দ্বার অবারিত থাকতে হবে। দেশের সর্বত্র এর মানবসেবামূলক কর্মকান্ড বিস্তৃত হতে হবে।

7. সম-মর্যাদাসম্পন্ন এবং পরস্পরকে সাহায্যের জন্য সমান দায়িত্ব ও কর্তব্যের অধিকারী জাতীয় সোসাইটিসমূহ নিয়ে গঠিত আন্তর্জাতিক রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট বিশ্বব্যাপী একটি সর্বজনীন আন্দোলন।

 কার্যক্রমঃ

1.            ত্রাণ ও পুনর্বাসন কার্যক্রম।

2.             শীতকালীন বস্ত্র বিতরণ (কম্বল ও পুরাতন কাপড়)

3.            অনুসন্ধান কার্যক্রম।

4.             জেল কারাগারে আটক বিদেশী কয়েদীদের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতরণ (হাইজিং কিট্স)

5.             মুমুর্ষ রোগীদের মধ্যে বিনামূল্যে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচী।

6.             স্বাস্থ্য সেবা কার্যক্রমঃ   (ক) আউট ডোর হাসপাতাল ও মাতৃসদন হাসপাতাল পরিচালনা,

                               (খ) গ্রাম, পল্লী ও বস্তিতে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য সেবা ও ঔষধ বিতরণ কার্যক্রম। 

7.             রক্তকেন্দ্র পরিচালনা।

8.             বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয় পর্যায়ে যুব রেড ক্রিসেন্ট কার্যক্রম পরিচালনা।

9.             প্রশিক্ষণঃ        (ক) রেড ক্রস ও রেডক্রিসেন্ট মৌলিক প্রশিক্ষণ, (খ) প্রাথমিক চিকিৎসা প্রশিক্ষণ (গ) অনুসন্ধান ও উদ্ধার প্রশিক্ষণ, 

10.         জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবসগুলিতে সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসমূহকে প্রয়োজন অনুযায়ী উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে স্বেচ্ছাসেবক প্রদানের মাধ্যমে কাজ বাস্তবায়নে সহযোগিতা প্রদান করা।